শীতের ‘অবসর’ – আরো তিনটি লেখা

অবসর শীত সংখ্যার প্রচ্ছদ কথা – শিক্ষা-দীক্ষা

বিভাস ভট্টাচার্য পেশায় পশ্চিমবঙ্গ রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান।

তাঁর পেশাগত সীমানার বাইরে আগ্রহের প্রধান বিষয়: বাংলা সাহিত্য, বাংলা ও বাঙালির সংস্কৃতির ইতিহাস, জীবনী ও আত্মজীবনী, বিজ্ঞানের ইতিহাস। বাংলায় লেখা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে যেসব পত্রিকায়: বহুস্বর, অন্তরা, মিলেমিশে এবং বিজ্ঞান ও প্রকৃতি। অন্যতম সম্পাদক: বহুস্বর সাহিত্য পত্রিকা। ভালোবাসেন পুরোনো বাংলা চলচ্চিত্র দেখতে, পুরোনো বাংলা গান এবং রবীন্দ্রসংগীত শুনতে, কোষগ্রন্থ ও অভিধান সংগ্রহ করতে।

তাঁর বিষয় – মাতৃভাষায় উচ্চশিক্ষার প্রস্তাবনা 

মধুসূদন বলেছিলেন – মাতৃভাষারূপ খনি পূর্ণ মণিজালে॥  এটা নিঃসন্দেহে আবেগের কথা। কিন্তু মাতৃভাষায় শিক্ষার স্বপক্ষে কথা বলেছেন অনেক বড় বড় শিক্ষাবিদই। কিন্তু তার জন্য চাই পরিকল্পনা ও প্রস্তুতি। তাই খতিয়ে দেখলেন বিভাস, বাংলাভাষায় উচ্চশিক্ষা প্রসঙ্গে।

সংগ্রামী লাহিড়ী বিদ্যায় প্রযুক্তিবিদ, পেশায় কনসালট্যান্ট, নেশায় লেখিকা।

সংগ্রামীর শাস্ত্রীয় সংগীত নিয়ে বহুকালের সিরিয়াস চর্চা আছে। অল ইন্ডিয়া রেডিওর A গ্রেড শিল্পী।

সংগীত কি  বই বা লেখা পড়ে শেখা যায়?  অবশ্যই না।  কিন্তু সংগীত বিষয়টি সম্পর্কে অনেক কিছু জানা যায় যদি কোনও দক্ষ সংগীতজ্ঞের কলমের জোর থাকে। অল ইন্ডিয়া রেডিওর উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকারিণী সংগ্রামী লাহিড়ী শুধু সুলেখক নন, চল্লিশ বছর ধরে সঙ্গীত শিক্ষা করেছেন সঙ্গীতাচার্য ডঃ অমিয়রঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে।  আর ঠিক সেই জন্যেই তিনি লিখতে পেরেছেন ‘সংগীতশিক্ষার সাতকাহন’।
ভারতীয় উচ্চাঙ্গসংগীতের বিশাল সমুদ্র থেকে বেছে বেছে কিছু  মণিমুক্তা অত্যন্ত সহজ ও আকর্ষণীয় করে  সংগ্রামী লাহিড়ীর এই উপস্থাপনা –  শুধু সাধারণ পাঠক নয়, সংগীত যাঁরা ভালোবাসেন সবারই ভালো লাগবে। 

ঊর্মি দত্তগুপ্ত অঙ্কের প্রফেসর এবং গবেষক, নিউ ইয়র্ক সিটি কলেজ অফ্ টেকনলজি, সিটি ইউনিভার্সিটি অফ্ নিউইয়র্ক। সমাজ সচেতন এবং মানবতাবাদী।

অবসর সময়ে, ঊর্মি, লেখালেখি, আঁকাআঁকি, এবং শিল্পচর্চা করতে ভালোবাসেন। প্রবন্ধ, ভ্রমণ কাহিনী, ছোট গল্প, কবিতা, ছোটদের গল্প – এসব কিছু ইদানীংকালে প্রকাশিত হয়েছে।

অতিমারী আমাদের জীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলেছে। তার ফলে রোগীকে হসপিটালে যেতে হচ্ছে, আশা সেখানে গিয়ে তাঁদের পূর্ণ নিরাময় হবে। কিন্তু সেখানে গিয়ে তাঁদের রোগাক্রান্ত হবার আশঙ্কা কি থাকছে?

আ্যান্টিবায়োটিকস্ প্রতিরোধী ক্ষমতা মানুষের রোগ নির্মূলে নানাবিধ সমস্যার সৃষ্টি করছে। বিশেষতঃ বয়স্ক বা দীর্ঘমেয়াদী রোগীদের সুস্থ করে তোলায় বাধার সৃষ্টি করছে। এটা রোধ করতে সাধারণ মানুষের কী করণীয়?

প্রকাশ পাচ্ছে – ১৫ই জানুয়ারি, ২০২১

চোখ রাখুন – https://abasar.net/

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s