‘লাকি ক্যাপ্টেন’

প্রথম তাঁকে দেখেছিলাম ১৯৬৯ সালের ডিসেম্বর মাসে ইডেনে। জীবনের প্রথম টেস্ট খেলা দেখতে গিয়ে। চতুর্থ টেস্টের চতুর্থ দিনে ভারত যখন তাসের ঘরের মত ভেঙে পড়ছে, তিনিই ছিলেন প্রতিরোধের একমাত্র মুখ। ১৬১ রানের মধ্যে তাঁরই ৬২। ইনিংস পরাজয় এড়াতে মুখ্য ভূমিকা ছিল তাঁরই। আবার যখন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক বিল লরি স্ট্যাকপোলকে নিয়ে প্রয়োজনীয় অনধিক চল্লিশ রান করতে […]

Read More ‘লাকি ক্যাপ্টেন’

শুনিয়েছিলাম গান — 

শ্রদ্ধেয় অনিরুদ্ধ ধর কদিন আগেই সুপ্রিয়া দেবীকে নিয়ে লিখেছেন। তখন ‘সানন্দা’ পত্রিকাতে একটি আত্মজীবনী লিখছিলেন সুপ্রিয়া দেবী। সেই লেখার সঙ্গে অনিরুদ্ধদার খুব ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। আমি লেখাটি পড়তে খুব ভালবাসতাম। একদম আটপৌরে ভাষায় ঝরঝরে লেখা, খুব মন টানতো। এই কিশোর জন্ম ও রবীন্দ্রপ্রয়াণ পক্ষতে মনে পড়ছে একটি বিশেষ ঘটনার কথা। ‘দূর গগন কি ছাও মে’ তে […]

Read More শুনিয়েছিলাম গান — 

তাঁর শেষ পরিচয় – পূর্ণতার সঙ্গে

আজ (কোন পঞ্জিকা মতে গতকাল) রবীন্দ্রনাথের মৃত্যুদিন। যে মানুষটি তাঁর ছোটবেলা থেকেই মৃত্যুর সঙ্গে পরিচিত হয়ে চলেছিলেন বারেবার, বহুবছর আগে এই দিনেই মৃত্যুর সঙ্গে তাঁর শেষ পরিচয়।     তাঁর জীবনের মত মৃত্যুর উপলব্ধি আর কারুর হয়েছে বলে জানা নেই। আশ্চর্য, তা সত্ত্বেও তাঁর পথচলা থামেনি। খুব ছোটবেলাতেই মাতা, মাতৃস্বরূপ বৌদি, বাবা, নিজের ছেলে, মেয়ে, […]

Read More তাঁর শেষ পরিচয় – পূর্ণতার সঙ্গে

প্রবাসে ‘প্রভাতে’র আলোর স্পর্শ

১৯৮৩ সাল। সেবছর জুন মাসে ভারতে দু দুটো বড় ঘটনা ঘটেছে, আমরা ইঞ্জিনীয়ার হয়েছি, আর কপিলের ভারত বিশ্বজয় করেছে। এক ‘নতুন প্রভাত’ জাগার সময় হয়েছে। ভাগ্যান্বেষণে আমরাও এসে পড়েছি ব্যাঙ্গালোরে। তখনো জানিনা, এখানে আমাদের জন্যেও এক ‘নতুন প্রভাত’ অপেক্ষা করছে। আমাদের অফিসে তখনো বাঙালীর সংখ্যা বেশী নয়। সেখানে সাত সাত খানি নব্য যুবার আবির্ভাব বেশ […]

Read More প্রবাসে ‘প্রভাতে’র আলোর স্পর্শ

আহ্বান – শুনি – আ – হ্বান

  কুবের আলয় ছাড়ি’ উত্তরে আমার বাড়ি, গিয়া তুমি দেখিবে সেথায়— সম্মুখে বাহিরদ্বার, বাহার কে দেখে তার, ইন্দ্রধনু যেন শোভা পায় |   পার্শ্বে এক সরোবর, দেখা যায় মনোহর, পদ্ম সনে অলি করে ঠাট | তাহার একটি ধারে, অপরূপ দেখিবারে, পরকাশে মণি-বাঁধা ঘাট |   মেঘদূতের এই অনুবাদটি যিনি করে ছিলেন তিনি রবীন্দ্রনাথের জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা শ্রী দ্বিজেন্দ্রনাথ […]

Read More আহ্বান – শুনি – আ – হ্বান

আমার কলকাতা

যদিও আমার জন্ম কলকাতার একটি হাসপাতালে, কিন্তু আমার বড় হয়ে ওঠা দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার একটি মফঃস্বল শহরে যা কলকাতার থেকে মাত্র ১৫-১৬ কিলোমিটার দূরত্বে। কিছুদিন আগে অবশ্য সেটির পিন-কোড পরিবর্তিত হয়ে কলকাতার পিনে পরিণত হয়েছে, কিন্তু কলকাতাবাসীদের কাছে সেইসময় আমরা ‘দোখনো’ বলে পরিচিত হতাম। আর আমাদের বাল্যকালে না ছিল মিনিবাস, দূরপাল্লার বাস – না ছিল […]

Read More আমার কলকাতা